Facebook
Twitter
WhatsApp

চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে, প্রজাপতি ছাড়ছেন বাস মালিকেরা !

প্রজাপতি বাস
image_pdfimage_print

অনলাইন ডেস্ক : রাজধানীসহ সারাদেশে পরিবহন কোম্পানীর চাঁদাবাজিতে বাস মালিকেরা ধীরে ধীরে পথে বসতে চলেছেন।

টয়লেট থেকে শুরু করে রাস্তায় প্রতি পদে পদে পরিবহন কোম্পানীর লাগামহীন চাঁদাবাজিতে বাস মালিকসহ চালক ড্রাইভাররা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। সম্প্রতি পরিবহন খাতে বেশুমার চাঁদাবাজি কিছুটা শিথিল হলেও এবার পরিবহন কোম্পানীর মালিকেরা লাগামহীন চাঁদাবাজিতে মত্ত হয়েছেন।

পরিবহন কোম্পানীর চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে ইতিমধ্যেই অনেক বাস মালিক পরিবহন ব্যবসা থেকে সরে গেছেন, বাকিরাও পরিবহন ব্যবসা থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেবার পরিকল্পনা করছেন। দিন কয়েক আগে প্রজাপতি পরিবহন কোম্পানীর এমডি রফিকুল একটি পরিবহন কোম্পানীর নামে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিলে তার সত্যতা খুঁজতে যেয়ে বেরিয়ে আসে প্রজাপতি নামের পরিবহন কোম্পানীর বেশুমার চাঁদাবজির ইতিহাস।

প্রজাপতি কোম্পানী ছেড়ে অন্যান্য পরিবহন কোম্পানীতে গাড়ী নেবার কথা জানতে চাইলে বাস মালিকরা একেরপর এক বিভিন্ন ছুতোয় দেওয়া চাঁদাবাজির বর্ননা দেন। বাস মালিকেরা জানান মোহাম্মদপুর, বছিলা, আসাদগেইট, কলেজগেইট, দারুস সালাম, টোলারবাগ, মিরপুর, কালশী, ইসিবি, বিশ্বরোড, আব্দুল্লাহপুর ও সুইচগেইট এলাকা মিলিয়ে ৪৫ জন চেকার আছে এবং ভিআইপি চেকার ৮ জন আছে।

প্রজাপতি পরিবহন কোম্পানীর মোট ১৭০ টি গাড়ী রাস্তায় চলে এবং প্রতি চেকারের জন্য গাড়ী প্রতি দিন ১০ টাকা করে দিতে হয় কোম্পানীর এমডিকে। লোকাল ৪৫ জন চেকারের নামে প্রজাপতি কোম্পানী আয় করে মাসে ২২,৯৫,০০০/= টাকা। বিভিন্ন প্রেমেন্টসহ নানা ছুতোয় দৈনিক আরো দিতে হয় ৫০০/= টাকা সেই হিসেবে মাসে কোম্পানীকে বাস মালিকদের দিতে হয় ২৫,৫০,০০০/= টাকা। ব্যাগমানির নামে কোম্পানীকে দিতে হয় ৮০ টাকা করে সেই হিসেবে কোম্পানীকে বাস মালিকদের মাসে দিতে হয় আরো ৮,০৮,০০০/= টাকা। প্রতিটি বাসের ড্রাইভার হেল্পারদের টয়লেট বিল মাসে ১০ টাকা করে দিতে হয় সেই হিসেবে কোম্পানীকে মাসে দিতে হয় আরো ১,০২,০০০/= টাকা। সব মিলিয়ে প্রজাপতি পরিবহন কোম্পানীকে বাস মালিকদের দিতে হয় মাসে ৫৭,৫৫,০০০/= টাকা। অথচ প্রজাপতি পরিবহন কোম্পানীতে থাকা বাস মালিকেরা প্রতিদিন ৫০০-১০০০ টাকা নিজেদের পকেট থেকে ভূর্তকি দিচ্ছে যেটা তাদের নিকট হতে প্রাপ্ত ওয়েবিল থেকে জানা যায়। বাস মালিকেরা বারবার কোম্পানীর কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করে কোন উপায়ন্তর না পেয়ে কোম্পানী বরাবর লিগ্যাল নোটিশও পাঠায়।

গত ১৪/০৯/২০২০ তারিখে কোম্পানীকে বাস মালিকদের পাঠানো লিগ্যাল নোটিশের মাধ্যমে জানা যায় বাস মালিকেরা অযাচিত চেকার কমানো, বিভিন্ন ছুতোয় চাঁদা, টয়লেটের নামে চাঁদাবাজিসহ সকল প্রকার চাঁদাবাজি বন্ধের আহব্বান জানান। এবং তারা সেখানে উল্লেখ করেন যদি কোম্পানীর এরুপ চাঁদাবাজি বন্ধ না হয় তবে তার তাদের কোম্পানী থেকে নিজেদের গাড়ী এই কোম্পানীতে চালাবে না। এছাড়াও ওই লিগ্যাল নোটিশে বাস মালিকদের কাছ থেকে স্ট্যাম্প করে নেওয়ার বিষয়টি বাতিলের দাবিও জানানো হয়।

পরবর্তীতে কোম্পানীর পক্ষ থেকে লিগ্যাল নোটিশের জবাবে সকল বিষয় অস্বীকার করলে একাধিক বাস মালিকগণ তাদের কোম্পানী হতে ওই একই রুটে অন্য কোম্পানীর অধীনে গাড়ি রাস্তায় চালায়। যার কারণে প্রজাপতি পরিবহন কোম্পানী সেইসব কোম্পানীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দেয়।

প্রজাপতি পরিবহন কোম্পানীর অভিযোগ দেওয়া সেই পরিবহন কোম্পানীর এমডি জানান বাস মালিকেরা আমাদের কোম্পানীতে গাড়ী দেবার জন্য বারবার অনুরোধ জানালে আমরা কিছু বাস মালিকদের গাড়ী আমাদের কোম্পানীর ব্যানারে যোগ করি তাই তারা আমাদের কোম্পানীর বিরুদ্ধে মন গড়া অভিযোগ দিয়েছে।

অভিযুক্ত ওই পরিবহন কোম্পানীর মালিক আরো বলেন যারা অভিযোগ দিয়েছেনে তাদের অনেকে কোম্পানীর গাড়ী বন্ধ রয়েছে মাসের পর মাস ধরে। বাস মালিকদের জিম্মি করে পরিবহন কোম্পানী চালালে তো বাস মালিকেরা তাদের কোম্পানী ছাড়বেই এটাই স্বাভাবিক। তিনি আরো জানান আমাদের কোম্পানী বাস মালিকদের কাছে চাঁদাবাজি করেনা বিধায় বাস মালিকেরা আমাদের কোম্পানীতে তাদের বাস দিতে আসে।

 

আরও পড়ুন : চায়না-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ সেন্টারের রক্তদান কর্মসূচী ২৬ নভেম্বর

খবরটি শেয়ার করুন

Table of Contents

প্রধান উপদেষ্ঠা : আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ এমপি, সংসদ-সদস্য ঢাকা ১৬,প্রকাশক : মোঃ মাসুদ রানা (জিয়া) ।সম্পাদক : শাহাজাদা শামস ইবনে শফিক।সহকারী সম্পাদক : সৌরভ হাসান সোহাগ খাঁন। 

Subscribe Now

নিউজরুম চিফ এডিটর : মোঃ শরিফুল ইসলাম রবিন।সম্পাদকীয় কার্যালয় : ১২০/এ মতিঝিল বা/এ, ৪থ তলা, সুইট-৪০২, ঢাকা- ১০০০বার্তা কক্ষ : ০১৬৪২০৭৮১৬৪ – বিজ্ঞাপনের জন্য : ০১৬৮৬৫৭১৩৩৭

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by www.channelmuskan.tv © 2022

x