রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় সফল উদ্যোক্তা অয়ন

ঢাকা: তার ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল উদ্যোক্ত হওয়ার। প্রথমে অবশ্য ঝুঁকি নিয়েই ব্যবসা শুরু করেন তিনি। এএফসি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট, বার্গার জোন, তেহেরি মাস্তান দিয়ে ব্যবসা শুরু করলেও বর্তমানে তার সফল উদ্যোগ ড্রিম ক্যাফে।

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuitআর এম জাবের হোসেন অয়ন। জন্মস্থান কক্সবাজারে হলেও বর্তমানে বসবাস ঢাকাতেই। বর্তমানে ঢাকার সরকারি বাংলা কলেজে অনার্সে অধ্যায়রত। তবে তিনি সবার কাছে একজন উদ্যোক্তা হিসেবেই পরিচিত।

নিজের ব্যবসা নিয়ে বলতে গেলে আর এম জাবের হোসেন অয়ন বলেন, ব্যবসা শুরুর আগে শুধু একটাই চিন্তা ছিল, আমাকে কিছু একটা করতে হবে। পরিবার থেকে সাপোর্ট পেয়েছি। আমার ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল কখনো চাকরি করবো না। মানুষকে চাকরি দেব। নিজে উদ্যোক্তা হবো। এজন্য শুরুর দিকে ছোট ছোট কিছু ব্যবসা করতাম। প্রথমে এএফসি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট দিয়ে শুরু করি। এরপর ২০২০ সালে ড্রিম ক্যাফে শুরু করি। মোটামুটি সফল বলা যায়।

অয়ন বলেন, ২০১৪ সালে আমি ঢাকায় আসি। তখন থেকে পরিকল্পনা ছিল ব্যবসা করার। কিন্তু কি করবো তা নিয়ে দ্বিধায় ছিলাম। একপর্যায়ে সিদ্ধান্ত নেই হোটেল ব্যবসা করবো। পরে এই সিদ্ধান্তই ফাইনাল করি। শুরু করি হোটেল ব্যবসা।

তিনি আরো বলেন, প্রথমে পুঁজি হিসেবে সাত লাখ টাকা দিয়ে এএফসি হোটেল শুরু করি। কয়েক বছর চালানোর পরে এটি বিক্রি করে দেই। এরপর ২০২০ সালে ড্রিম ক্যাফে চালু করি। আরেকটা আছে ক্লাউড কিচেন। এখানে শুধু তেহারি বিক্রি করি। অনলাইনে এটা শুধু চলে।

অয়ন বলেন, ড্রিম ক্যাফে যখন শুরু করি, তখন কর্মচারী ছিল ১২ জন। এখনও ১২ জনই আছে। তবে মাঝে মাঝে চেঞ্জ হয়। তবে আশার কথা হলো অনেক ক্রেতা পাচ্ছি। শুরু থেকেই ক্রেতা ভালো পাচ্ছি। আমরা চেষ্টা করি ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী ভালো খাবার সরবরাহ করার। আরেকটি বিষয় বলে রাখি, ড্রিম ক্যাফেতে শুধু ক্রেতা সাধারণরা খেতে আসেন না, এখানে কিডস জোন আছে, ৫টি ফটো কর্নার আছে ছবি তোলার জন্য। কিডস জোনে বাচ্চারা ইচ্ছেমতো আনন্দ করতে পারে। যে কারণে সব সময় ক্রেতা সাধারণের ভিড় থাকে।

ভবিষ্যৎ স্বপ্ন সম্পর্কে তিনি অয়ন বলেন, আমার ইচ্ছে প্রতিষ্ঠানটিকে আরও বড় করার। অনেক লোকের কর্মসংস্থান করতে চাই। এছাড়া একটা অ্যাপস এর কাজ চলছে। ইজিমার ডটকম নামে। এটা মূলত ই-কমার্স ব্যবসা।

খবরটি শেয়ার করুন

Edumint LMS

x