রাজধানীতে বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের মানব বন্ধন

হাসিব পান্হ :  সম্মিলিত সমন্বয় ফ্রন্ট বায়রা,বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিজ কর্তৃক আয়োজিত মানব বন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙলবার ০৯ ফেব্রুয়ারি, রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে এ মানব বন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি রপ্তানিতে মালয়েশিয়াসহ নিশ্বের সকল শ্রম বাজার থেকে সিন্ডিকেট পদ্ধতি বাতিল করে সকল বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির জন্য সকল শ্রম বাজার উন্মুক্ত রাখার আহবান জানানো হয়।

সিন্ডিকেট একটি কুপ্রথা, এটি শ্রমিক শোষণের হাতিয়ার। এই পদ্ধতিতে ব্যবসা-বানিজ্য পরিচালিত হলে দেশের জনগণ শোষিত হয়, জনগণের মধ্যে বৈষম্যের সৃষ্টি হয়, দুর্নীতি বেড়ে যায়, দেশের উন্নয়ন ব্যাহত হয়।

জনশক্তি রপ্তানি নাংলাদেশের অর্থনীতি প্ররদ্ধির প্রান। জনশক্তি রপ্তানি ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। আজ দেশের যতটুকু উন্নয়ন হয়েছে তার সিংহভাগের দাবীদার জনশক্তি রপ্তানি । মালয়েশিয়া শ্রম বাজার বাংলাদেশী শ্রমিকের তৃতীয় বৃহত্তম বাজার।

এ দেশে লক্ষ লক্ষশ্রমিক কর্মরত এবং বর্তমানে ও লক্ষ লক্ষ শ্রমিকের চাহিদা রয়েছে। ২০১৬ সালে সম্পাদিত জি টু জি প্রাস চুক্তির পর ১২০০ বৈধ রিক্রুটিং এজেসিকে বঞ্চিত করে শুধুমাত্র ১০ টি এজেন্সির সমন্বয়ে গঠিত একটি সিন্ডিকেটকে শ্রমিক রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হয়। সিডিকেটের মাধ্যমে শ্রমিক রপানির ফলে অভিবাসন ব্যয় বেড়ে যায়, শ্রমিক রপ্তানি কমে যায়, ফরেন রেমিট্যান্স কমে যায় , দুর্নীতি ও বৈষম্য বেড়ে যায়।

তারা সম্মিলিত সমন্বয় ফ্রন্ট, বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক রপ্তানিতে সর্বপ্রকার সিন্ডিকেট বিরোধী। তারা চান, সকল শ্ৰম বাজার সকল রিক্রুটিরং এজেন্সির জন্য উন্মুক্ত রাখা হউক।মানব বন্ধন কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন সম্মিলিত সমন্বয় ফ্রন্টের সভাপতি ড. মোহাম্মদ ফারুক। সভায় আরাে উপস্থিত ছিলেন এশিয়া টিভির সম্মানিত চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ, মাইক্রো এক্সপাের্ট হাউজ এর স্বত্যাধিকারী মোস্তফা মাহমুদ, লিজা ওভারসিজ লি: এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিরাজ মিয়া, গোলাম ফারুক, কাজী এম.এ. কাশেম, ডাক্তার জে এইচ গাজী, রেদোয়ান খান বোরহান, গোলাম মোস্তফা বাবুল সহ আরও অনেকে।

 

আরও পড়ুন : রাজধানীতে প্রবীণ একাদশ বনাম নবীন একাদশ প্রীতি ম্যাচ খেলার আয়োজন

খবরটি শেয়ার করুন
x