Facebook
Twitter
WhatsApp

দেশে প্রথম মেট্রো রেলচালক মরিয়ম ও আসমা

image_pdfimage_print

বাংলাদেশে প্রথম মেট্রো রেল চলাচল শুরু হচ্ছে, সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৮-৩০ ডিসেম্বর রাজধানীবাসির দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পুরনের দিন এবং তারা মেট্রোরেলে উঠবেন। প্রথম ট্রেনটির চালকের আসনের মুর্হুতটি স্মরনীয় নিয়োগ পাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে দুজন নারীও রয়েছেন। তারা পুরোদমে প্রশিক্ষণ শেষ করেছেন।

এদিকে রাজধানীর মেট্রোরেল নির্মাণ ও পরিচালনার দায়িত্বে আছে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। আগামী ২৮-৩০ডিসেম্বর এর মধ্যে যে কোন দিন উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেল চালু করবে ডিএমটিসিএল। ইতিমধ্যেই ট্রেনের পরীক্ষামূলক চলাচল শুরু হয়েছে। মেট্রোরেলের চালকের পদটির নাম ‘ট্রেন অপারেটর। এই পদে ২৫ জনের সঙ্গে রয়েছেন মরিয়ম আফিজা। স্টেশন থেকে ট্রেন পরিচালনায় যুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে সমন্বয় করবেন স্টেশন কন্ট্রোলার। এই পদে ৩৪ জনের সঙ্গে নিয়োগ পেয়েছেন আসমা আক্তার।

রেলের একাধিক সুত্রে জানা গেছে, ট্রেন অপারেটর কখনো স্টেশন কন্ট্রোলের দায়িত্ব পালন করবেন, আবার স্টেশন কন্ট্রোলার প্রয়োজন হলে ট্রেনও চালাতে পারবেন। মরিয়ম ও আসমা ইতিমধ্যে চট্টগ্রামের হালিশহরে বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনিং একাডেমিতে দুই মাসের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। ঢাকায় ফিরে আরও চার মাস প্রশিক্ষণ সর্ম্পন্ন করেছেন তারা।

বর্তমানে উত্তরার দিয়াবাড়িতে মেট্রোরেলের ডিপোতে কারিগরি ও প্রায়োগিক প্রশিক্ষণ ও সম্পন্ন করেছেন। এখানে মেট্রোরেলের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জাপানের মিতসুবিশি-কাওয়াসাকি কোম্পানির বিশেষজ্ঞরা ট্রেন পরিচালনার কারিগরি ও প্রায়োগিক নানা প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, তারা দিল্লি মেট্রোরেল একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। প্রয়োজনে ট্রেন পরিচালনায় যুক্ত ব্যক্তিদের জাপানেও প্রশিক্ষণ দেওয়ার পরিকল্পনা আছে কর্তৃপক্ষের।

মরিয়ম আফিজা নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর করেছেন কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে। লক্ষ্মীপুরের মেয়ে মরিয়ম নিয়োগ পেয়েছেন গত বছর ২ নভেম্বর। মরিয়ম বলেন, মেট্রোরেল বাংলাদেশে প্রথম। এই চাকরির জন্য আবেদন করেছিলেন নিজস্ব আগ্রহ থেকেই। মেট্রো রেল অনেকের মতো আমার কাছেও একটা প্রাপ্তি এবং স্বপ্ন।

তিনি আরও বলেন, আমি নিজে ট্রেন চালাবো সেই ট্রেনে নগরবাসি চলাচল করবেন এটা ভেবে বেশ আনন্দে আত্মহারা আমি। এখন মূল লক্ষ্য সঠিকভাবে নিজের দক্ষতা অর্জন করা কাজে লাগাতে পারলেই বাংলাদেশের নারীর অগ্রযাত্রা সার্থক।

আসমা আক্তার বলেন, তিনি রাজধানীর তিতুমীর কলেজ থেকে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক করেছেন। স্টেশন কন্ট্রোলার পদে নিয়োগ পেয়েছেন ২০১৯ সালের ২১ আগস্ট। তিনি বলেন, পত্রিকায় চাকরির বিজ্ঞাপন দেখে একটা চাকরি করব শুধু এটা ভেবেই এখানে আসিনি। মেট্রোরেল ব্যবস্থার প্রতি একটা প্যাশনও কাজ করেছে। এ জন্য প্রশিক্ষণে মেট্রোরেলের খুঁটিনাটি সবই রপ্ত করার চেষ্টা করছি।

তিনি বলেন, আমার পদ স্টেশন কন্ট্রোলার হলেও ট্রেন চালাতে হতে পারে। এটা আসলেই একটা রোমাঞ্চকর ব্যাপার। মেট্রোরেল প্রকল্পে অর্থায়ন করছে জাপান সরকারের উন্নয়ন সংস্থা জাইকা। প্রকল্পের মূল কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালের আগস্টে।

উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেলের দৈর্ঘ্য ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার। এর মধ্যে উত্তরা-আগারগাঁও অংশ, এ পথে নয়টি স্টেশন আছে। আগারগাঁও-মতিঝিল অংশে ট্রেন চালু হতে পারে আগামী বছর ২০২৩ ডিসেম্বরে। এ পথে স্টেশনের সংখ্যা ৭।

আগারগাঁও পর্যন্ত অংশের স্টেশন নির্মাণসহ যাবতীয় কাজ শেষ হয়েছে। এরই মধ্যে ১৪ সেট (এক সেটে ছয়টি কোচ) মেট্রোরেল ঢাকায় আছে। এগুলো পরীক্ষামূলকভাবে চালানো হয়েছে। মেট্টোরেল এর একাধিক সুত্রে আরও জানা গেছে, ফ্রন্টলাইন কাস্টমার রিলেশন অফিসার ও টিকিট মেশিন অপারেটর পদে আরও প্রায় ৪০০ লোক নিয়োগ দেওয়া হবে। এদের মধ্যে নারী নিয়োগ দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে কর্তৃপক্ষের বলে জানা গেছে।

ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম এ এন সিদ্দিক বলেন, মেট্রোরেল চালুর লক্ষ্য নিয়ে কাজ শেষ পর্যায়। তিনি বলেন, মেট্রোরেল পরিচালনায় যোগ্য ও দক্ষ লোকবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে নারীরাও যাতে বেশি সংখ্যায় নিয়োগ পান, সে বিষয়টিতেও নজর দেওয়া হয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন

Table of Contents

প্রধান উপদেষ্ঠা : আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ এমপি, সংসদ-সদস্য ঢাকা ১৬,প্রকাশক : মোঃ মাসুদ রানা (জিয়া) ।সম্পাদক : শাহাজাদা শামস ইবনে শফিক।সহকারী সম্পাদক : সৌরভ হাসান সোহাগ খাঁন। 

Subscribe Now

নিউজরুম চিফ এডিটর : মোঃ শরিফুল ইসলাম রবিন।সম্পাদকীয় কার্যালয় : ১২০/এ মতিঝিল বা/এ, ৪থ তলা, সুইট-৪০২, ঢাকা- ১০০০বার্তা কক্ষ : ০১৬৪২০৭৮১৬৪ – বিজ্ঞাপনের জন্য : ০১৬৮৬৫৭১৩৩৭

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by www.channelmuskan.tv © 2022

x